| ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

রেকর্ডময় ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের যত রেকর্ড

২০২২ মে ২৪ ২১:৫৭:০০
রেকর্ডময় ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের যত রেকর্ড

ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে আউট হয়েছে বাংলাদেশের ৬ ব্যাটার। ২৪ রানে ৫ উইকেট হারানো বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত অলআউট হয়েছে ৩৬৫ রানে। মূলত মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের ব্যাটেই বাংলাদেশ এই চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পায়। মুশফিক-লিটনের জোড়া সেঞ্চুরিতে সাড়ে তিনশোর ওপর রান তোলায় বাংলাদেশ জায়গা করে নিয়েছে রেকর্ড বুকে।

টেস্ট ক্রিকেটে ছয়জন ব্যাটার শূন্য রানে আউট হওয়া ইনিংসে কোনো দলই পারেনি এত রান করতে। এক ইনিংসে কমপক্ষে পাঁচ ব্যাটসম্যান শূন্য রানে আউট হওয়াকে হিসেবে নিলেও এটাই তৃতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, সাকিব আল হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন, খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন -বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে আউট হয়েছেন এই ছয় ব্যাটার। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটা যৌথভাবে সর্বোচ্চ ডাকের রেকর্ড।

বাংলাদেশ ছাড়াও এই লজ্জার রেকর্ড বয়ে বেড়াচ্ছে পাকিস্তান (১৯৮০), দক্ষিণ আফ্রিকা (১৯৯৬), ভারত (২০১৪) ও নিউজিল্যান্ড (২০১৮)। অবশ্য বাংলাদেশ এ রেকর্ডে নাম লেখাল এবার নিয়ে দ্বিতীয়বার। এর আগে ২০০২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম এমন লজ্জার মুখোমুখি হয় টাইগাররা।

অবশ্য লজ্জার পাশাপাশি গর্ব করার মতো রেকর্ডও এই টেস্টে গড়েছে বাংলাদেশ। একটা বিশ্বরেকর্ড তো গতকালই গড়েছিল মুশফিক-লিটন। টেস্টে কোন ইনিংসে ২৫ রানের নিচে পাঁচ উইকেট হারানোর পর ষষ্ঠ উইকেটে শতরানের জুটির একমাত্র দৃষ্টান্ত বাংলাদেশই গড়েছে। সে জুটিও শতক তো ছাড়িয়েছেই, ছাড়িয়ে গেছে দ্বিশতকের ঘরও।

২৭২ রানের জুটিতে মুশফিক-লিটন গড়েছেন বাংলাদেশের পক্ষে ষষ্ঠ উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি। আগের রেকর্ডেও অবশ্য ভাগ ছিল মুশফিকের। ২০০৭ সালে মুশফিক আর আশরাফুল মিলে করেছিলেন ১৯১ রান।

এক ইনিংসে ছয়জন ব্যাটার শূন্য রানে আউট হওয়ার পর কোন দলই কখনো ছুঁতে পারেনি দুশো রানের কোটা। এতদিন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটা ছিল ভারতের দখলে। ২০১৪ সালে ছয় ব্যাটার শূন্য রানে আউট হওয়ার পর প্রথম ইনিংসে ভারত করেছিল ১৫২ রান।

এটাই এতদিন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ছিল। বাংলাদেশই প্রথম দল হিসেবে ২০০ রানের মাইলফলক পেরিয়ে ৩০০ রান করার কৃতিত্ব অর্জন করল। তবে শূন্যের সংখ্যা কমিয়ে পাঁচে আনলে বাংলাদেশের রেকর্ড চলে আসে তিন নম্বরে। পাঁচজন ব্যাটার ডাক মারার পর সর্বোচ্চ সংগ্রহের রেকর্ড দক্ষিণ আফ্রিকার দখলে।

সেখানেও অবশ্য জড়িয়ে বাংলাদেশের নাম। ২০০৮ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে পাঁচ ব্যাটার ডাক মারা স্বত্বেও দক্ষিণ আফ্রিকা সংগ্রহ করেছিল ৪২৯ রান। দ্বিতীয় স্থানেও দক্ষিণ আফ্রিকা। তাও সেই ১৯৩৮ সালে। সেবার দক্ষিণ আফ্রিকা সংগ্রহ করেছিল ৩৯০ রান। প্রোটিয়ারা দুটি ঘটনাই ঘটয়েছিল দ্বিতীয় ইনিংসে।

রেকর্ড বুকে তৃতীয় স্থানটি আজ চলে গেল বাংলাদেশের দখলে। ছয় ব্যাটারের ডাক সত্ত্বেও মুশফিক-লিটন বীরত্বে ৩৬৫ রান করতে সমর্থ হয় বাংলাদেশ। মজার বিষয়, বাংলাদেশের ইনিংসে আর মাত্র দুজন ছুঁয়েছে দুই অংকের রান।

তাইজুল ইসলাম করেছেন ১৫ রান। দুই অংকের দেখা পাওয়া অপরজনের নাম মিস্টার এক্সট্রা। বাংলাদেশের ইনিংসে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান যোগ হয়েছে অতিরিক্ত খাত থেকে। মোট ১৭ রান অতিরিক্ত এসেছে বাংলাদেশের ইনিংসে।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে