| ঢাকা, রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ যে দাবী উপস্থাপন করেছিলেন চেতেশ্বর পূজারার সামনে

২০২১ ফেব্রুয়ারি ২৫ ১৫:৫৬:৫০
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ যে দাবী উপস্থাপন করেছিলেন চেতেশ্বর পূজারার সামনে

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের উদ্বোধনে হাজির হয়েছিল পুরো চাঁদের হাট। কিন্তু তাদের মধ্যে মূল আকর্ষণ ছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে সৌরাষ্ট্রের ছেলে চেতেশ্বর পুজারাকে কার্যত আদেশ দিয়ে দিলেন ‘মোটা ভাই’ অমিত শাহ। যা দেখে হতবাক ক্রিকেট বিশ্ব।

নব নির্মিত স্টেডিয়ামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চেতেশ্বর পূজারার কাছ থেকে ডাবল সেঞ্চুরির প্রত্যাশা করেছেন অমিত শাহ। একই সাথে, তিনি এটিও আশা রাখছেন যে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচে ভারতের জয়ে পূজারা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবেন। অমিত শাহ প্রত্যাশা করেছেন পুজারা ম্যাচ জয়ের ইনিংস খেলবেন। এছাড়াও তিনি অতীতে একই জায়গায় ভারতীয় ক্রিকেটের কিছু কিংবদন্তি খেলোয়াড়দের পারফর্মেন্স স্মরণ করেছিলেন।

এই নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, “এই স্টেডিয়ামটি খুব স্মরণীয়। জাভাগাল শ্রীনাথ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এখানে ছয় উইকেট নিয়েছিলেন। এই মাঠে, কপিল দেব রিচার্ড হেডলির সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ডটি ভেঙে দিয়েছিলেন। একই মাঠে সুনীল গাভাস্কার ১০ হাজার রানের অঙ্কটি অতিক্রম করেছিলেন। এই মাটিতেই শচীন তেন্ডুলকার ১৮ হাজার ওয়ানডে এবং ৩০ হাজার আন্তর্জাতিক রানের মাইলস্টোন অর্জন করেছিলেন, পাশাপাশি তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও তার ২০ বছর পূর্ণ করেছিলেন এই মাঠেই। আর এবার আমি চাই পূজারা এখানে ডাবল সেঞ্চুরি করুন।”

বলা বাহুল্য, চেতেশ্বর পূজারা যখন শেষবার আহমেদাবাদে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন, তখন তিনি ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন (২০৬)। কিন্তু অমিত শাহের দেওয়া আবদার রাখতে পারলেন না পূজারা। কোনও রান না করেই ইংল্যান্ডের বাঁ হাতি স্পিনার জ্যাক লিচের বলে এলবিডব্লু আউট হন পূজারা।

নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে সবুজ ঘাস দেখে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক জো রুট টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। তবে, ইশান্ত শর্মা তৃতীয় ওভারে ডম সিবলিকে আউট করে ইংল্যান্ড দলে চাপ তৈরি করতে শুরু করেছিলেন। এরপরে ভারতীয় স্পিনাররা উভয় প্রান্ত থেকে প্রতিপক্ষের উপর চাপ অব্যাহত রাখেন। রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও অক্ষর প্যাটেল ইংল্যান্ড দলের একের পর এক উইকেট তুলতে থাকেন। আর এর জেরে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসটি হ্রাস পেয়েছিল মাত্র ১১২ রানে। এই ম্যাচে, অক্ষর প্যাটেল নিজের নামে ছয়টি উইকেট নিয়েছিলেন, এছাড়া রবিচন্দ্রন অশ্বিন তিন উইকেট এবং ইশান্ত শর্মা একটি উইকেট নিয়েছিলেন।

পাঠকের মতামত:

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে