| ঢাকা, বুধবার, ৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭

আজ যে কারনে সেঞ্চুরীর সুযোগ পেয়েও আউট না হয়েও মাঠ ছাড়লেন তামিম

২০২১ জানুয়ারি ১৬ ১৮:৪২:১২
আজ যে কারনে সেঞ্চুরীর সুযোগ পেয়েও আউট না হয়েও মাঠ ছাড়লেন তামিম

ক্যারিবীয় সিরিজকে সামনে রেখে নিজেদের মাঝে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে সহজ জয় পেয়েছে তামিম একাদশ। দলপতি তামিম ইকবালের দুর্দান্ত ইনিংসে ৮ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে তার দল। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সাকিব আল হাসান ও নাঈম শেখের ফিফটিতে ভর করে ২২৩ রান করে মাহমুদউল্লাহ একাদশ।

২২৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন তামিম ও লিটন দাস। উদ্বোধনী জুটিতে দুজন যোগ করেন ৭৭ রান। ব্যক্তিগত ৪৮ রানে বিদায় নেন লিটন। তার ব্যাট থেকে আসে ৯টি বাউন্ডারি।

লিটনের বিদায়ের পর তামিমের সঙ্গে দলের হাল ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় উইকেটে দুজনে গড়েন ১১৯ রানের জুটি। ৫১ বলে ৬১ রান করে সাজঘরে ফেরেন শান্ত। শতকের পথে হাঁটছিলেন তামিম। তবে দলের অন্যদের ব্যাটিংয়ের সুযোগ করে দিতে ৮০ বলে ৮০ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হিসেবে মাঠ ছাড়েন তিনি।

তামিম স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়ার পর দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন মোহাম্মদ মিঠুন ও সৌম্য সরকার। মিঠুন ১৭ ও সৌম্য ১২ রান করে অপরাজিত থাকেন। মাহমুদউল্লাহ একাদশের পক্ষে উইকেট দুটি শিকার করেন যথাক্রমে তাসকিন আহমেদ ও হাসান মাহমুদ। তামিমের দল ৩৫.২ ওভারে ৫৮ বল হাতে রেখে জয় পায়।

এদিকে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ ৪০ ওভারের হলেও দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ ৪৫ ওভারে অনুষ্ঠিত হয়। আগে ব্যাট করতে নেমে নাঈম ও ইয়াসির আলি রাব্বির উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৪৫ রান। ব্যক্তিগত ২৪ রানে মাহেদী হাসানের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন রাব্বি। এরপরই ব্যাট করতে নামেন সাকিব। নাঈমকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে যোগ করেন ৫০ রান। ফিফটি করে মাহেদীর বলেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন নাঈম।

ব্যাট হাতে প্রথমে ধুঁকতে থাকেন সাকিব। ধীরে-সুস্থে শুরুর পর উইকেটের পরিস্থিতির বুঝে আক্রমণে যান তিনি। ৫২ রান করতে এই অলরাউন্ডার খেলেছেন মোট ৮২ বল। চার এবং ছয় হাঁকিয়েছেন মাত্র ১টি করে।

৩৬ ওভারে দলীয় ১৬৮ রানের মাথায় নাসুম আহমেদের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন সাকিব। এছাড়া মুশফিকুর রহিমের ব্যাট থেকে আসে ২৫ রান। রুবেল হোসেনের বলে বোল্ড হন তিনি। এছাড়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৩১ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ১১ রানের ইনিংস খেলেন।

তামিম একাদশের হয়ে দুর্দান্ত বল করেছেন মাহেদী হাসান। ৯ ওভারে ৩১ রান খরচায় তিনি নিয়েছেন ২ উইকেট। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন খরুচে বোলিং করলেও ২ উইকেট শিকার করেন। এছাড়া মুস্তাফিজুর রহমান, নাসুম আহমেদ এবং রুবেল হোসেনের শিকার ১টি করে উইকেট।

স্কোরকার্ড: মাহমুদউল্লাহ একাদশ: ২২৩/৭ (৪৫ ওভার)নাঈম ৫০ (৬৮), ইয়াসির ২৪ (৩৬), সাকিব ৫২ (৮২), মুশফিক ২৫ (২৭), মোসাদ্দেক ৩১ (৩৭), মিরাজ ১১ (১২), তাইজুল ৪ (৫)*, হাসান মাহমুদ ২ (৪) সাইফউদ্দিন ৯-১-৬২-২, মেহেদী ৯-০-৩১-২, আফিফ ৩-০-১১-০, মুস্তাফিজ ৯-১-৩৭-১, রুবেল ৯-০-৪৪-১, নাসুম ৬-০-৩৩-১

তামিম একাদশ: ২২৪/২ (৩৫.২ ওভার)লিটন ৪৮ (৫৩), তামিম ৮০ (৮০)* রিটায়ার্ড হার্ট, শান্ত ৬১ (৫১), মিঠুন ১৭ (১৭), সৌম্য ১২ (১২)আল আমিন ৪-০-২১-০, সাকিব ৩.২-০-২১-০, মিরাজ ৫-০-৩৩-০, তাইজুল ৪-০-৩১-০, তাসকিন ৭-০-৪৫-১, হাসান ৫-০-৩১-১, মোসাদ্দেক ৫-০-২৯-০, রাহী ২-০-১২-০।

পাঠকের মতামত:

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে