| ঢাকা, শুক্রবার, ৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭

বাজারে এলো নতুন পালসার,দাম ও একেবারেই কম

২০২০ জুন ২০ ১০:২৩:০৪
বাজারে এলো নতুন পালসার,দাম ও একেবারেই কম

পালসার মোটর বাইক হলো বাজাজের একটি পন্য। তবে এখন পর্যন্ত পালসারের যতগুলো মডেলের বাইক বাজারে এসেছে সবগুলোই বিক্রি হয়েছে ভালো। ভারতের বাজারে গত বৃহস্পতিবার পালসার ১২৫-এর নতুন মডেল বাজারে আনল বাজাজ। যুক্ত হল নতুন অনেক ফিচার। তার মধ্যে অন্যতম স্প্লিট সিট। সঙ্গে স্পোর্টি মোটরসাইকেলের একাধিক ফিচার।

বাজাজের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে পালসার ১২৫-এর নতুন মডেলের দাম পড়বে ৭৯ হাজার ৯১ রুপি। আগের ১২৫ মডেলের ডিস্ক ব্রেকের সঙ্গে এই মডেলের ফারাক বিস্তর। আগের ক্ষেত্রে ছিল ফ্রন্ট সিট ডিস্ক ব্রেক। এবারে তার বদলে থাকছে সিঙ্গল সিট ডিস্ক ব্রেক।

অটোমোবাইল বিশেষজ্ঞদের মতে, সিঙ্গল সিট ডিস্ক ব্রেকের সুবিধা হচ্ছে বালি-কাঁকড় বা জে রাস্তায় ডিস্ক ব্রেক চাপলেও স্কিড করার সম্ভাবনা কম। তাদের ভাষায় সিঙ্গল সিট ডিস্ক ব্রেক চাকাকে মাটির সঙ্গে কামড়ে ধরে রাখতে সাহায্য করে।

তিনটি রঙের কম্বিনেশন হবে নতুন পালসার ১২৫।এগুলো হল-নিয়ন-ব্ল্যাক, ব্ল্যাক-সিলভার এবং ব্ল্যাক-রেড।

বাজাজ অটোর প্রেসিডেন্ট সারাং কানাকাড়ে বলেন, ‘নতুন মডেল নিয়ে আমরা উত্তেজিত। আমরা আশা করছি আগের বারের মতোই এই মডেলেরও চাহিদা থাকবে তুঙ্গে’।

গতবছর আগস্ট মাসে প্রথম পালসার ১২৫ সিসির বাইক বাজারে এনেছিল বাজাজ। প্রথম ছয়মাসের মধ্যে সারা ভারতে এক লক্ষ বাইক বিক্রি হয়েছিল।

তবে বাজাজের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ১২৫ সিসির প্রথম মডেলে যা যা ফিচার ছিল তার উপরে দাঁড়িয়ে অনেক ক্রেতা আমাদের নতুন নতুন ফিচার যোগ করার পরামর্শ দেন। তারা জানান, এই ফিচারগুলো যোগ হলে যে কোনও তথাকথিত স্পোর্টি বাইকের সমতুল্য হয়ে যাবে পালসার-১২৫। বাজাজ তাদের পরামর্শেই নতুন ফিচার যোগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নতুন বিএস৬ পালসার-১২৫ মডেলে হেড লাইটের অংশটি দেখতে হবে নেকড়ের চোখের মতো। টুইন পাইলট ল্যাম্পের সঙ্গে থাকবে টুইন স্ট্রিপ এলইডি ল্যাম্প। যা অন্ধকার রাস্তায় অনেক দূর পর্যন্ত দৃশ্যমানতা তৈরি করবে। এখানেই শেষ নয়। এর সঙ্গে থাকবে ৩১ মিলিমিটার টেলিস্কোপ ফ্রন্ট ফর্কস, দুটি গ্যাস শক করার অ্যাবজর্বার। চাকার মাপ ১৭ ইঞ্চি।

এই মোটর সাইকেলে যে ডিটিএসআই ইঞ্জিন ব্যবহার করা হবে তা হল ১১.৬ বিএইচপি, ৮৫০০ আরপিএম। সঙ্গে ১০.৮ এনএম এর পিক টর্ক। যার ফলে গতিও হবে মসৃণ।

বাইকটির মোট ওজন হবে ১৪২ কেজি। যা পালসারের যে কোনও মডেলের মধ্যে সর্বোচ্চ। অনেকেই বলেন, লম্বা রাস্তায় যেখানে বেশি গতিতে বাইক চালানো যায় সেখানে বেশি ওজন হলে সুবিধা।

লকডাউনের কারণে অটোমোবাইলস শিল্প মন্দার মুখে পড়েছে। তবে আনলকের প্রথম পর্ব থেকেই ফের গাড়ি বিক্রি শুরু হয়েছে। পর্যবেক্ষকদের মতে, সংক্রমণের কারণে এখন অনেকেই ট্রেন, বাস মেট্রোর মতো গণপরিবহন এড়িয়ে চলবেন। মধ্যবিত্তরা মোটর সাইকেলকেই আগামী দিনে কর্মস্থলে যাওয়ার ক্ষেত্রে বাহন করে নেবেন। সেদিক থেকে দু’চাকা যানের বিক্রি বাড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। ঠিক সেই সময়েই পালসার ১২৫-এর নতুন ফিচার যুক্ত মডেল আনল বাজাজ।

পাঠকের মতামত:

প্রযুক্তি এর সর্বশেষ খবর

প্রযুক্তি - এর সব খবর



রে