| ঢাকা, শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭

বাংলাদেশের এই ৫ জন নারী যুক্তরাষ্ট্রে নতুন ইতিহাস গড়ছেন

২০২০ জুন ০৩ ১৭:২২:৫৪
বাংলাদেশের এই ৫ জন নারী যুক্তরাষ্ট্রে নতুন ইতিহাস গড়ছেন

যুক্তরাজ্য অনেক দিন আাগে থেকেই দেখা যাচ্ছে মানুষের বসবাস। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত নাগরিকদের অংশগ্রহণ দেখা যাচ্ছে রাজনীতিতে।

তবে দেশগুলোর রাজনীতিতে খুব বেশি নেই বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণ। তবে এবার সেই ধারা ভেঙে আসন্ন নির্বাচনে ইতিহাস গড়তে চলেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত পাঁচ মুসলিম নারী। যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন নির্বাচনে তারা প্রার্থী হিসেবে লড়বেন। এই পাঁচ বাংলাদেশি মুসলিম নারী হলেন- নাবিলা ইসলাম, শারমিন শাহজাহান, ম্যারি জোবাইদা, মৌমিতা আহমেদ ও শাহানা হানিফ।

এর মধ্যে জর্জিয়া অঙ্গরাজ্য থেকে থেকে কংগ্রেসের হয়ে লড়বেন নাবিলা ইসলাম। ইলিনয়ের হ্যানওভার পার্কের পুননির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন শারমিন শাহজাহান। নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলিতে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন ম্যারি জোবাইদা। কুইনস থেকে ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে লড়বেন মৌমিতা আহমেদ এবং শাহানা হানিফ নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন।

এ বিষয়ে নাবিলা ইসলাম বলেন, এখানের নির্বাচন অত্যন্ত ব্যয়বহুল হওয়ায় বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণ কম। তারপরও এই পর্যন্ত আসার পেছনে মায়ের অবদান সবচেয়ে বেশি। পরিবারের সবাই অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছেন। মায়ের মতো মানুষদের জন্য কিছু করার ইচ্ছাই আমাকে রাজনীতিতে আসতে উৎসাহ দিয়েছে।

শারমিন শাহজাহান বলেন, স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে বাংলাদেশিদের সম্পৃক্ততা কম থাকায় এ পথে কেউ আসতে চায় না। সবাই চিন্তা করেন, যদি রাজনীতিতে ঢুকে যাই তাহলে তা সন্তানদের জীবনে খারাপ প্রভাব পড়তে পারে।ম্যারি জোবাইদা বলেন, বাংলাদেশে মানুষের ৫টি মৌলিক চাহিদা হলো- খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, খাদ্য ও চিকিৎসা। যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেত্রেও বিষয়টি একই। তাছাড়া বাংলাদেশের মতো এখানেও এই বিষয়গুলো নিয়ে লড়াই চলে। তাই রাজনীতিতে আসা।

জয়ী হতে পারলে তিনিই নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলির প্রথম মুসলিম নারী ও বাংলাদেশি হবেন। শাহানা হানিফ বলেন, তিনি নিজে একজন কমিউনিটি অর্গানাইজার। দীর্ঘদিন ধরে এই পথে কাজ করার ফলে রাজনীতিতে নামার আগ্রহ জন্মে। একই কথা বলেন মৌমিতা আহমেদও।

পাঠকের মতামত:

বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বিশ্ব - এর সব খবর



রে