| ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

নতুন পরিকল্পনায় টাইগাররা

২০১৯ জুন ১২ ১৭:২১:৪৭
নতুন পরিকল্পনায় টাইগাররা

শুরুর আনন্দের রেশটা খুব বেশি সময় ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের পর টানা দুই হার আর শ্রীলংকার বিপক্ষে বৃষ্টির বাগড়া। সব মিলিয়ে ইংল্যান্ডে সময়টা ভালো যাচ্ছে না টিম বাংলাদেশের। টাইগারদের পরের ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। এবারের আসরে সবচেয়ে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানদের দল এটি। ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, নিকোলাস পুরান, সাই হোপ, শিমরন হেটমেয়ার। নামগুলো শুনলেই বোলারদের শিরদাঁড়া হীম হয়ে আসার কথা। এমন বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানদের থামাতে ঘাম ছুটে যায় প্রতিপক্ষ অধিনায়কের। টাইগার সমর্থকদের মনে উঠেছে প্রশ্ন উঠছে, ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানদের থামাতে কতটুকু প্রস্তুত বাংলাদেশের বোলিং লাইন আপ।

এবারের বিশ্বকাপ পরীক্ষায় বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইন আপ মোটামুটি উতরে গেছে। সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহিম-সৌম্য সরকাররা ভালো ফর্মে রয়েছেন। তামিম ইকবালের ফর্ম নিয়ে চিন্তা থাকলেও ভক্তরা জানেন, তামিমের রানে ফেরাটা কেবল সময়ের বিষয়। চিন্তা বাড়াচ্ছে বাংলাদেশের বোলাররা।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে জয় পাওয়াতে মুস্তাফিজ-মাশরাফিদের খরুচে হওয়ার আলোচনা চাপা পড়ে যায়। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা ও স্পিনারদের প্রভাবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও বাংলাদেশের বোলিং নিয়ে খুব একটা আলোচনা হয়নি। বাংলাদেশের বোলিংয়ের দৈন্যতাটা ফুটে ওঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচে ২৬.১ ওভার বল করে ১৯০ রান দিয়েছেন পেস ডিপার্টমেন্টের প্রধান অস্ত্র মুস্তাফিজুর রহমান। বোলিং গড়টা সাতেরও বেশি। বলে গতি ফিরলেও কাটার, স্লোয়ার, ইয়র্কারগুলো নেই আগের মতো।

তিন ম্যাচে বল হাতে হতাশ করেছেন মাশরাফি বিন মতুর্জা। আসরে ২১ ওভার বল করে ১৪৯ রান দিয়ে মাত্র একটি উইকেটই পেয়েছেন টাইগার দলপতি। প্রতি ওভারে সাতেরও বেশি রান দিয়েছেন ম্যাশ। ব্যাট হাতে আলো ছড়ালেও বল হাতে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেন সাকিব আল হাসান। একমাত্র বোলার হিসেবে প্রতি ম্যাচেই কোটার পুরো ওভার বল করেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। আসরে এখন পর্যন্ত পেয়েছেন দুটি উইকেট। প্রতি ওভারে ৫.৬ রান দিয়েছেন সাকিব।

এবারের আসরে ৬ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা বোলার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। ১৪৪ বল করে দিয়েছেন ১৭৬ রান। বোঝাই যাচ্ছে, উইকেট পেলেও বল হাতে বেশ উদারতারই পরিচয় দিচ্ছেন এই অলরাউন্ডার। কমপক্ষে ৪ উইকেট নিয়েছেন এমন বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে অমিতব্যয়ী সাইফুদ্দিন।

ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এবারের বিশ্বকাপে বেশ রান উঠলেও অন্য দলের পেসাররা কিন্তু যথেষ্ট ভালো বল করেছেন। টুর্নামেন্টে সবোর্চ্চ উইকেট শিকারী বোলারদের পাঁচজনই পেসার। সবাই ওভার প্রতি ছয়ের কম রান দিয়েছেন। ৬ উইকেট নিয়ে সেরা দশে রয়েছেন সাইফুদ্দিন। এই দশজনের মধ্যে কেবল সাইফুদ্দিনই ওভার প্রতি ছয়ের বেশি রান দিয়েছেন (৭.৩৩)

বিশ্বকাপে টাইগার বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কৃপণতার পরিচয় দিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তিন ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছেন এই স্পিনার। ওভার প্রতি দিয়েছেন ৫.২৬। সাকিব ৫.৬০ ও মোসাদ্দেক দিয়েছেন প্রতি ওভারে ৫.৯৩ রান। স্পিনাররা আস্থার পরীক্ষায় মোটামুটি উতরাতে পারলেও এখন পর্যন্ত হতাশ করেছেন পেসাররা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবারের আসরে খেলেছে তিনটি ম্যাচ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচটা বৃষ্টির কারণে ভেসে গেলেও বাকি দুই ম্যোচে দারুণ ব্যাটিং করেছেন ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ম্যাচ থেকেই বোলারদের ব্যস্ত রেখে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করে দিয়েছেন গেইল ও রাসেল। নিকোলাস পুরান-হেটমেয়ারদেরও ছন্দে দেখা গেছে। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে সাই হোপের রেকর্ড তো চমকে দেওয়ার মতো। টাইগারদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচে ২৯৭ রান করেছেন এই ব্যাটসম্যান। গড়টা শুনলে অবাক হয়ে যাবেন ২৯৭!

গেইল-পুরান-ব্রাফেটদের খুব ভালোভাবে চেনেন সাকিব-মিরাজরা। বিপিএলে একাধিকবার মুখোমুখি হয়েছেন তারা। আর কলকাতা নাইট রাইডার্সের সাবেক সতীর্থ হিসেবে আন্দ্রে রাসেলকে বেশ ভালোই জানা আছে সাকিবের। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাতে হলে পুরনো অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে হবে বোলারদের। বল হাতে আর একটু কৃপণতারও পরিচয় দিতে হবে।

পাঠকের মতামত:

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে